, মঙ্গলবার, ০৩ অক্টোবর ২০২৩ , ১৭ আশ্বিন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ


মিশরে পুনরায় খুলল ঐতিহাসিক অটোমান মসজিদ

  • আপলোড সময় : ১৮-০৯-২০২৩ ০৭:১৫:৪১ অপরাহ্ন
  • আপডেট সময় : ১৮-০৯-২০২৩ ০৭:১৫:৪১ অপরাহ্ন
মিশরে পুনরায় খুলল ঐতিহাসিক অটোমান মসজিদ
অবশেষে দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে সংস্কার করার পর পুনরায় উদ্বোধন করা হলো মিশরের প্রথম অটোমান মসজিদ। ১৫২৮ খ্রিষ্টাব্দে কায়রো দুর্গের ভেতর তৈরি করা হয় ঐতিহাসিক এ নিদর্শন। ২ হাজার ৩৬০ বর্গ মিটার জায়গার নির্মিত নিখুঁত কারুকাজের মসজিদটিতে রয়েছে ২৩টি গম্বুজ। ১৬শ’ শতাব্দীর সুলেমান পাশা-আল-খাদিমের আমলে কায়রোতে তৈরি করা হয় মিশরের প্রথম অটোমান মসজিদ।

দীর্ঘ সময় ধরে সংস্কারকাজ চলার পর নতুন করে আবারও খুলে দেয়া হয়েছে বড় গম্বুজ, সুউচ্চ মিনার, আর চমৎকার গাঁথুনিতে তৈরি মসজিদটি। খবর আরব নিউজের। মামলুক সাম্রাজ্যের কাছ থেকে সুলতান সেলিমের অটোমান বাহিনীর মিশর জয় করার ১১ বছর পর ১৫২৮ খ্রিষ্টাব্দে তৈরি করা হয় মসজিদটি। 

বিশেষ টাইলস দিয়ে তৈরি মসজিদটি বাইরে এবং ভেতরে দেখতে আকর্ষণীয়। ২ হাজার ৩৬০ বর্গ মিটার জায়গার ওপর নির্মিত মসজিদটির ভেতরে নামাজ পড়ার পাশাপাশি রয়েছে কোরআন শিক্ষার স্কুল। ২৩টি সবুজ গম্বুজ, বিশেষ টাইলস দিয়ে তৈরি মসজিদটি বাইরে এবং ভেতরে দেখতে আকর্ষণীয়। ২ হাজার ৩৬০ বর্গ মিটার জায়গার ওপর নির্মিত মসজিদটির ভেতরে নামাজ পড়ার পাশাপাশি রয়েছে কোরআন শিক্ষার স্কুলও। 
 
এদিকে কায়রোর দুর্গের ভেতর অবস্থিত ঐতিহাসিক এই মসজিদটি সুলেমান পাশা আল-খাদিম নামে পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি সারিয়া মসজিদ নামে বেশ জনপ্রিয়। দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে মিশরের প্রত্নতত্ত্ব সুপ্রিম কাউন্সিল এবং সেনাবাহিনীর আরব সংস্থার তত্ত্বাবধানে থাকার পর অবশেষে খুলে দেয়া হয়েছে মসজিদটি। এটি সংস্কার করতে খরচ হয়েছে প্রায় ১ লাখ ৬২ হাজার মার্কিন ডলার।